সর্বশেষ সংবাদ
বিনোদন বাথটাবে ডুবে মারা যাওয়া তারকারা

বাথটাবে ডুবে মারা যাওয়া তারকারা


পোস্ট করেছেন: bhorerkhobor | প্রকাশিত হয়েছে: 03/01/2018 , 1:52 am | বিভাগ: বিনোদন


বাথটাবে ডুবে মারা যাওয়া শোবিজ তারকার সংখ্যা নেহায়েত কম নয়। গত শনিবার রাতে দুবাইতে মারা যাওয়া শ্রীদেবী কি দুর্ঘটনাক্রমে মারা গেছেন? নাকি তাকে হত্যা করা হয়েছে?

এমন প্রশ্নের উত্তর হয়তো একদিন পাওয়া যাবে, কিন্তু হালফিল যে ‘সত্য’ সবার সামনে প্রচার হচ্ছে- বাথটাবের পানিতে ডুবে মারা গেছেন ‘রূপ কি রানি’ শ্রীদেবী। এই ঘটনা আমাদের মনে করিয়ে দিচ্ছে ‘দুর্ঘটনাক্রমে’ বাথটাবে ডুবে মারা যাওয়া আলোচিত তারকাদের কথা। খোঁজ করে এমন ঘটনাও পাওয়া গেছে যে মা এবং মেয়ে দুজনই জনপ্রিয় তারকা ছিলেন যাদের মৃত্যু হয়েছে বাথটাবে।

পাঠকদের জন্য এমনি কিছু তারকার মৃত্যু ঘটনা তুলে ধরা হলো-

জুডি গারল্যান্ড : যুক্তরাষ্ট্রের নামিদামি অভিনেত্রী ও সংগীত তারকা ছিলেন। ১৯২২ সালের ১০ জুন জন্ম নেওয়া জুডি অল্প বয়সেই গান আর অভিনয়ে পরিচিতি পান। মাত্র ৪৭ বছর বয়সে তিনি মারা যান। লন্ডনে ভাড়া করা বাসার গোসলখানার বাথটাবে পাওয়া যায় তার লাশ।

জিম মরিসন : জগৎখ্যাত গায়ক এবং কবি ছিলেন। ‘দ্য ডোরস’ ব্যান্ডের লিড সিঙ্গার হিসেবে দুনিয়াজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে তার নাম। কিন্তু বিশ্বজুড়ে লাখো কোটি দর্শককে কাঁদিয়ে মাত্র ২৭ বছর বয়সে তার মৃত্যু হয়।

প্যারিসে নিজের অ্যাপার্টমেন্টে বাথটাবে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় তাকে। হার্ট অ্যাটাকে তার মৃত্যু হয় বলে জানা গেছে।

ববি ক্রিস্টিনা ব্রাউন : খ্যাতিমান গায়িকা হুইটনি হাউস্টনের মেয়ে মার্কিন রিয়েলিটি টিভি শোর খ্যাতিমান ব্যক্তিত্ব ছিলেন ববি ক্রিস্টিনা ব্রাউন। মায়ের মতো গায়িকা হিসেবেও তার পরিচিতি ছিল। মাত্র ২২ বছর বয়সে মারা যান। তার মৃত্যুও বাথটাবে ডুবেই হয়েছে বলে জানা যায়।

হুইটনি হাউস্টন : ২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি এক হোটেলে নিজের স্যুইটের বাথটাব থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয় তার সময়ের অন্যতম শ্রেষ্ঠ গায়িকা হুইটনি এলিজাবেথ হাউস্টনকে। ততক্ষণে তিনি মৃত ছিলেন। মৃত্যুর মাত্র দুই দিন আগে জীবনের শেষ অনুষ্ঠানে পারফর্ম করেন।

১৯৯২ সালে রোমান্টিক থ্রিলার বডিগার্ড-এ লিড রোলে অভিনয় করেন। তার গাওয়া এই ছবির ‘আই উইল অলওয়েজ লাভ ইউ’ কোনো নারী কণ্ঠের একক অ্যালবাম হিসেবে বেস্ট-সেলিং মর্যাদা পায় এবং ‘রেকর্ড অব দ্য ইয়ার’ হিসেবে গ্রামি অ্যাওয়ার্ড জেতে।

এ ছাড়া ‘কিং অব রক অ্যান্ড রোল’ হিসেবে খ্যাত এলভিস প্রিসলির মৃত্যুও হয়েছিল বাথরুমে। ১৯৭৭ সালের ১৬ আগস্ট মাত্র ৪২ বছর বয়সে তার বাড়ি গ্রেসল্যান্ড ম্যানসনের বাথরুমের ফ্লোরে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। ফরেনসিক রিপোর্টে জানা যায়, ইনজেকশনের মাধ্যমে মাত্রাতিরিক্ত ড্রাগ গ্রহণের ফলে কার্ডিয়াক অ্যারিথমিয়া (অস্বাভাবিক হৃৎস্পন্দনজনিত সমস্যায়) তার মৃত্যু হয়।

বাংলাদেশে বিশেষ করে বাংলা গানের ক্ষেত্রে আশি ও নব্বই দশকের জনপ্রিয় পপসংগীত শিল্পী সাবা তানিকেও মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে বাথরুমে। ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, গত ১৯ ফেব্রুয়ারি (সোমবার) সকালে রাজধানীর উত্তরার বাসায় বাথরুমে পড়ে গিয়ে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মাত্র ৪৯ বছর বয়সে মারা যান তিনি।

প্রখ্যাত কমেডিয়ান লেনি ব্রুসের মৃত্যুও হয় বাথরুমে। হলিউড হিলসের নিজ বাড়িতে ১৯৬৬ সালের ৩ আগস্ট বাথরুমে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। তিনি মাত্রাতিরিক্ত মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছিলেন মৃত্যুর আগে দিয়ে। গত শতাব্দীর ৫০ ও ৬০-এর দশকে রাজনীতি, সমাজনীতি, ধর্ম, গর্ভপাত, বর্ণবাদ ইত্যাকার বিষয়ে তার হুলে ফোঁটানো কমেডি ব্যাপক আলোচনার বিষয় ছিল এবং এজন্য তিনি বেশ সমালোচিতও ছিলেন। অনেকবার পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে, জামিনও পেয়েছেন বারবার। ফরেনসিক রিপোর্টে জানা যায়, মাত্রাতিরিক্ত মর্ফিন গ্রহণের ফলে তার মৃত্যু হয়।

‘কিং অব পপ’ মাইকেল জ্যাকসনকেও বাথরুমে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় বলে জানায় ইন্ডিয়া টাইমস। বহুল আলোচিত ‘দিস ইজ ইট’ ট্যুর শুরু হওয়ার আগের দিন তিনি মারা যান। সার্জিক্যাল অ্যানেস্থেটিক প্রপোফলের মাত্রাতিরিক্ত প্রয়োগ তার মৃত্যুর কারণ বলে জানা যায়। তবে অন্যান্য বিবরণে জানা যায়, তাকে তার বিছানায় অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায় / জনসত্তা.কম, উইকিপিডিয়া, এন্টারটেইনমেন্ট.হাউস্টাফওয়ার্কস.কম, ইন্ডিয়াটাইমস.কম,

Comments

comments

Close