সর্বশেষ সংবাদ
খেলাধূলা, প্রধান সংবাদ গোল করার পর তপুর গুলি, মাঠেই লাশ হয়ে গেলেন সতীর্থরা! (ভিডিও)

গোল করার পর তপুর গুলি, মাঠেই লাশ হয়ে গেলেন সতীর্থরা! (ভিডিও)


পোস্ট করেছেন: bhorerkhobor | প্রকাশিত হয়েছে: 09/07/2018 , 1:13 am | বিভাগ: খেলাধূলা,প্রধান সংবাদ


ম্যাচ প্রায় শেষ হতে মাত্র কয়েক মিনিট বাকি। ঠিক এমন সময়ে মাঠ ভরা দর্শকদের উচ্ছ্বাসে ভাসালেন তপু বর্মন। তার করা দুর্দান্ত গোলেই পাকিস্তানকে ১-০ গোলে হারিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালের পথে পা রাখে স্বাগতিক বাংলাদেশ।

এ ম্যাচে একটি পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নেমেছিল তপু বাহিনী। ডিফেন্ডার আতিকুর রহমান ফাহাদের পরিবর্তে ইংলিশ কোচ জেমি ডে একাদশে রাখেন অভিজ্ঞ মিডফিল্ডার মামুনুল ইসলামকে।

প্রথমার্ধে বাংলাদেশ গোল করার মতো তেমন সুযোগ তৈরি করতে পারেনি। বরং স্বাগতিকরাই একবার রক্ষা পায় গোল হজম থেকে। ৯ মিনিটে পাকিস্তানের ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ আলীর হেড গোলরক্ষক শহিদুল আলম সোহেল লাফিয়ে ফিস্ট করে বাইরে পাঠান।

এরপর আক্রমণ পাল্টা আক্রমণ চলে। ম্যাচ যখন প্রায় শেষ মুহূর্তে, তখন গোলের দেখা পায় বাংলাদেশ। ৮৫ মিনিটে বিশ্বনাথ ঘোষের থ্রো থেকে দারুণ এক হেড করেন তপু বর্মন, পাকিস্তানি গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে বল জড়িয়ে যায় জালে।

গোল করেই ভোঁ দৌড় দিলেন তপু। তাকে যেন বেঁধে রাখাই দায়। পুরো বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের গ্যালারি তখন আনন্দপুরী। এর মাঝেই মাঠে ব্যতিক্রমী দৃশ্য ফুটিয়ে তুলে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। গোলদাতা তপু গুলি করার ভঙ্গি করলেন, তার সতীর্থদের কেউ কেউ পড়ে গেলেন লাশ হয়ে।

খেলার স্পিরিটের সঙ্গে এই উদযাপন যায় কি না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন কেউ কেউ। তবে বাংলাদেশের এই উদযাপন নিয়ে দর্শক মহলে অন্য অনুভূতিই। কেউ কেউ বলছেন মুক্তিযুদ্ধের চিত্র ফুটিয়ে তুলেছে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা। তা কি পরিকল্পনা করেই এই উদযাপন?

বাংলাদেশের হয়ে গোল করা তপু ম্যাচ শেষে জানান, আমার ব্যক্তিগত একটা পরিকল্পনা ছিল যদি দেশের জন্য গোল করতে পারি তবে জার্সি খুলে উদযাপন করবো।

তপু তাই করেছেন। নিয়ম অনুযায়ী খেয়েছেন হলুদ কার্ডও। কিন্তু গুলির দৃশ্য ফুটিয়ে তোলার পরিকল্পনা কিভাবে?

তপু বলেন, এটা আমার মাথায় ছিল না। এটা আমাদের ওয়ালী ভাইয়ের (ওয়ালী ফয়সাল) মাথা থেকে আসে। ওয়ালী ভাই আমাকে বলে, তুমি গুলি করবা। আমরা ডেথ হয়ে পড়ে থাকবো।

তপু বর্মন-জামাল ভুঁইয়াদের এমন উদযাপনের কারণ অবশ্য এখনও জানা যায়নি। তবে যতটুকু বোঝা গেছে, প্রতিপক্ষ পাকিস্তান বলেই সম্ভবত এমন উদযাপন তাদের। যেন প্রতীকী মুক্তিযুদ্ধ!

Comments

comments

Close