সর্বশেষ সংবাদ
অন্যান্য, প্রধান সংবাদ, প্রসাশন, বিভাগীয় সংবাদ ‘ছেলেধরা’ গুজব ঠেকানোর প্রচারণায় পুলিশ

‘ছেলেধরা’ গুজব ঠেকানোর প্রচারণায় পুলিশ


পোস্ট করেছেন: Staff Reporter | প্রকাশিত হয়েছে: 07/23/2019 , 11:00 am | বিভাগ: অন্যান্য,প্রধান সংবাদ,প্রসাশন,বিভাগীয় সংবাদ


 

ছেলেধরা’ গুজব ঠেকাতে চট্টগ্রাম নগরী ও জেলায় ব্যাপক প্রচারণা শুরু করেছে পুলিশ। মাইকিং, পথসভার মাধ্যমে গুজব শুনে আইন হাতে তুলে না নেওয়ার জন্য সাধারণ মানুষকে অনুরোধ করছে পুলিশ।

এদিকে ‘ছেলেধরা গুজব’ ছড়িয়ে যারা রাষ্ট্রের পরিকল্পিতভাবে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে এবং রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নগরীর ১৬ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দিয়েছেন সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমান। একইভাবে ছেলেধরা গুজব রটনাকারীদের কঠোরভাবে দমনের নির্দেশ দিয়েছেন চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা।

‘গুজব’ থেকে সাবধান!’ শিরোনামে নগর পুলিশের পক্ষ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘ছেলে ধরা’ একটি গুজব। এর কোনো ভিত্তি নেই। পদ্মা সেতু আমাদের জাতির দীর্ঘদিনের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতীক। রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক উন্নয়নে এর ভূমিকা অপরিসীম। যারা পদ্মাসেতুর মতো এমন একটি সুন্দর বিষয়কে অসুন্দর করার অপপ্রয়াসে এসব গুজব ছড়াচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

‘এ ধরনের গুজব যারা ছড়াচ্ছে তাদেরকে চিহ্নিত করুন এবং পুলিশের হাতে তুলে দিন। প্রয়োজনে ৯৯৯ এ ফোন করে তাদের তথ্য দিন। ‘ছেলে ধরা’ গুজবে কান দিয়ে কাউকে আহত করা, কাউকে প্রহার করা বা কাউকে শাস্তি দেওয়া চরম অন্যায় এবং গর্হিত অপরাধ। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকায় এ ধরনের কোনো তথ্য থাকলে দয়া করে ০১৭৬৯৬৯১১৬২/০৩১৬৩০৩৭৫- নম্বরে দ্রুত যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা হলো।’

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) আবু বক্কর সিদ্দিক সারাবাংলাকে বলেন, কমিশনার স্যারের নির্দেশে নগরীর ১৬ থানায় ওসিদের তত্ত্বাবধানে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্পট, স্কুলে সচেতনতামূলক সভা হয়েছে। এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এদিকে নগরীর কোতোয়ালী থানা এলাকায় মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দিনভর মাইকিং করা হয়েছে। এতে ছেলেধরা গুজব সৃষ্টিকারীদের পুলিশের হাতে তুলে দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে। অহেতুক গুজবে বিশ্বাস করে আইন হাতে তুলে না নেওয়ার কথাও বলা হয়েছে।

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন সারাবাংলাকে বলেন, আমরা সকাল থেকে কোতোয়ালী থানার বিভিন্ন এলাকায় মাইকিং করেছি। সাধারণ জনতাকে অহেতুক গুজবে বিশ্বাস না করতে সচেতন করার জন্য আমরা এই পদক্ষেপ নিয়েছি। এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আমাদের টিম গিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছে।

নগরীর আকবর শাহ থানার মুন্সীপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর কাট্টলী নূরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে পুলিশের মতবিনিময় হয়েছে।

এদিকে, চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা সারাবাংলাকে জানিয়েছেন, জেলার ১৬ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে গুজবের বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্য বলা হয়েছে। জনবহুল স্থানগুলোতে স্থানীয় কর্মকর্তাদের গিয়ে সচেতনতামূলক প্রোগ্রাম করার জন্য বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত সোমবার (২২ জুলাই) চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নে ‘ছেলেধরা’ গুজব তুলে তিন যুবককে পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। এর আগে হাটহাজারী উপজেলায়ও ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে তিনজনকে মারধর করে আহত করা হয়। তাদের বহনকারী প্রাইভেট কারটিও পুড়িয়ে দেওয়া হয়।

Comments

comments

Close