সর্বশেষ সংবাদ
প্রধান সংবাদ, রাজনীতি, শিক্ষাঙ্গন জাহাঙ্গীরনগর শাখা ছাত্রলীগ ইস্যুতে খুব দ্রুত পদক্ষেপ নিচ্ছিঃ আল নাহিয়ান জয় (অডিও)

জাহাঙ্গীরনগর শাখা ছাত্রলীগ ইস্যুতে খুব দ্রুত পদক্ষেপ নিচ্ছিঃ আল নাহিয়ান জয় (অডিও)


পোস্ট করেছেন: bhorerkhobor | প্রকাশিত হয়েছে: 02/04/2020 , 3:37 pm | বিভাগ: প্রধান সংবাদ,রাজনীতি,শিক্ষাঙ্গন


জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জা.বি) শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ও বর্তমান সভাপতির অব্যাহতি চেয়ে বিদ্রোহ করছেন সভাপতির নিজের হল (আ.ফ.ম কামালউদ্দিন) বাদে ছেলেদের ৭ হলের নেতাকর্মীরা। সোমবার মধ্যরাতে নতুন কমিটির দাবিতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় অবস্থান নেয়।

এর আগে রবিবার রাত ২টার দিকে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানার আবাসিক হলকে লক্ষ্য করে এক রাউন্ড গুলি ছোঁড়ার ঘটনা ঘটে। সেখানে সভাপতি ও বিদ্রোহীরা গুলি ছোঁড়ার ঘটনায় উভয় পক্ষকেই দোষারোপ করতে থাকেন বলে জানা গেছে।

এমতাবস্থায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের বিদ্যমান পরিস্থিতি নিয়ে ভোরের খবরের সাথে কথা বলেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়।

জাহাঙ্গীরনগর ছাত্রলীগ ইস্যুতে আল নাহিয়ান খান জয় বলেন,’আমরা ইতোমধ্যেই জাহাঙ্গীরনগরের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে অবগত আছি। আর এতা নিয়ে আমরা ইতোমধ্যেই আলোচনা করেছি।

জাহাঙ্গীরনগর ছাত্রলীগ সভাপতি মো. জুয়েল রানা’র হলে গুলি চালানোর বিষয়ে প্রশ্ন করলে আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, এ বিষয়টা আমি শুনেছি তবে এখনও কনফার্ম না যদিও এখন বলতে শোনা যাচ্ছে সেখানে পটকা ফুটানো হয়েছিলো, কোন গুলি করা হয়নি। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের যে অচলাবস্থা সৃষ্টি করতে চাইছে অনেকেই এইটা আমরা চাচ্ছি খুব তারাতারি এই সমস্যার সমাধান করে দিতে।

জাহাঙ্গীরনগর ছাত্রলীগের ঐক্য নষ্ট করতে কোন বিশেষ মহল কাজ করছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে জয় বলেন, তা তো অবশ্যই। আপনি জানেন যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একটা গঠণতন্ত্র আছে ও একটা চেইন অব কমান্ডের মধ্য দিয়েই ছাত্রলীগ পরিচালিত হয় সুতরাং সেখানে একটা কমিটি থাকার পরও আলাদা কোরাম করে ক্যাম্পাসের যে সুষ্ঠু পরিবেশ নষ্ট করে বিশৃঙ্খলা যারা তৈরি করতে চাইছে আমার তো মনে হয় তাদের কোন ভিন্ন অভিমত আছে।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে খুব তাড়াতাড়ি কোন সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন কিনা বা বসতে যাচ্ছেন কিনা এমন প্রশ্নে আল নাহিয়ান খান জয় জানান, আমরা কেন্দ্রীয়ভাবে খুব তাড়াতাড়ি একটা সিদ্ধান্ত দিবো এবং আপনারা জানেন যে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের যে সাধারণ সম্পাদক সেও অনেকদিন যাবত ক্যাম্পাসে নাই, তো সব মিলিয়ে যাতে ক্যাম্পাসে শৃঙ্খলা ফিরে আসে ও ঐখানের কমিটি যাতে সম্পূর্নভাবে গতিশীল হয় সেজন্য আমরা ব্যাবস্থা নিচ্ছি। এবং এ বিষয়ে আমরা খুব দ্রুত পদক্ষেপ নিচ্ছি।

প্রসঙ্গত, জাহাঙ্গীরনগর শাখা ছাত্রলীগের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে দুই বছর আগে। সাধারণ সম্পাদকও ৬ মাস আগ থেকেই ক্যাম্পাসে অনিয়মিত।

 

Comments

comments

Close