সর্বশেষ সংবাদ
খেলাধূলা, প্রধান সংবাদ শ্রীলংকা সফর স্থগিতের সমর্থন ডমিঙ্গোর

শ্রীলংকা সফর স্থগিতের সমর্থন ডমিঙ্গোর


পোস্ট করেছেন: ভোরের খবর ডেস্ক | প্রকাশিত হয়েছে: 10/03/2020 , 12:09 am | বিভাগ: খেলাধূলা,প্রধান সংবাদ


শ্রীলংকার দেওয়া কোয়ারেন্টাইনের শর্তে রাজি না হওয়ায় টেস্ট সিরিজ স্থগিত করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। ১৪ দিনের হোটেলে আবদ্ধ কোয়ারেন্টাইনে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে যেতেন ক্রিকেটাররা। বিসিবির সফর স্থগিতের সিদ্ধান্তকে তাই সমর্থন করছেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

এক জুম মিটিংয়ে শুক্রবার দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ ডমিঙ্গো বলেছেন, ‘অবশ্যই সিরিজটি স্থগিত হয়ে যাওয়ায় আমি হতাশ। তবে দলের ওপর যে শর্ত চাপানো হচ্ছিল তাতে আমি মনে করি বিসিবির সিদ্ধান্ত সঠিক। রুমে আবদ্ধ থেকে এতোগুলো দিন কাটানো। টেস্টের জন্য প্রস্তুতি নিতে না পারা আমাদের জন্য কঠিন হয়ে যেত। বিসিবির সিদ্ধান্তকে তাই পুরোপুরি সমর্থন করছি আমি।’

বাংলাদেশ জাতীয় দলের দু’জন ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন।এছাড়া ছোট খাটো উপসর্গ থাকায় এবং আবাসিক ক্যাম্প শুরুর আগে সুরক্ষার কথা চিন্তা করে বাংলাদেশের বেশ ক’জন ক্রিকেটারকে পাঁচ-ছয়দিন আইসোলেশনে থাকতে হয়েছিল। আবদ্ধ থাকা ওই সময়টা তাদের জন্য খুবই কঠিন ছিল বলে জানিয়েছেন ডমিঙ্গো। সিরিজটি খেলতে না পারায় ক্রিকেটাররাও হতাশ। তবে ক্রিকেটারকে বিসিবির সিদ্ধান্তের প্রশংসা করেছেন বলেও জানিয়েছেন ডমিঙ্গো।

শ্রীলংকা সফর না হওয়ায় বিসিবি এখন ঘরোয়া ক্রিকেট মাঠে ফেরানোর সিদ্ধান্ত নিচ্ছে। বোর্ডের এই সিদ্ধান্তকেও সমর্থন করছেন ডমিঙ্গো। তার মতে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরুর আগে যত বেশি সম্ভব ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে হবে ক্রিকেটারদের। কারণ ক্রিকেটাররা প্রায় সাত মাসের মতো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে। মার্চ থেকে তারা খেলে না কোন প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ। ঘরোয়া ক্রিকেট শুরু হলে ক্রিকেটাররা তিন-চার সপ্তাহের মধ্যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবেন বলেও মনে করেন ডমিঙ্গো।

জাতীয় দলের কোচিং স্টাফরা ক’জন ক্রিকেটারের টেকনিক নিয়ে কাজ করছেন। আপাতত ম্যাচ না থাকায় সেগুলো তাই সময় নিয়ে করা যাচ্ছে জানিয়ে ডমিঙ্গো বলেন, ‘সামনে ম্যাচ থাকলে ক্রিকেটারদের স্কিলে পরিবর্তন আনা কঠিন হয়ে যায়। এটা করতে এক-দুই সপ্তাহ লেগে যায়। অনেক সময় এক মাসও লাগে। আমরা কিছু ক্রিকেটারের টেকনিকে প্রভাব রাখার কাজ করছি।’

কোচ জানান, টেস্ট ওপেনার সাদমান হোসেনের ব্যাটিং স্ট্যান নিয়ে কাজ করছেন তিনি। সাদমান ব্যাট বেশ ওপরে রেখে খেলেন। কোচ চেষ্টা করছেন তার ব্যাটটা নিচে নামিয়ে খেলানোর। তাতে করে সাদমানের ব্যাটের সুইং ভালো হবে। আগের থেকে কিছুটা জোরে শট খেলতে পারবেন। এক সপ্তাহের মধ্যে ম্যাচ থাকলে এ ধরণের পরিবর্তন কঠিন। নাজমুল শান্ত স্পিন খেলার সময় মাথা বেশ নিচে নামিয়ে ফেলেন। সেটা কিছুটা ওপরে রেখে খেলানোর টেকনিক নিয়ে কাজ করছেন কোচ। এছাড়া মুস্তাফিজকে নিয়ে কাজ করছেন বোলিং কোচ ওটিস গিবসন। ডানহাতিদের বেলায় বল ভেতরের আনার কৌশল শেখাচ্ছেন তিনি। ডমিঙ্গোর আশা, নতুন বলে আগামীকালই মুস্তাফিজের ওই পরিবর্তন দেখা যাবে।

Comments

comments

Close